কক্সবাজার রাত ৪:৫৩ ৫ আগস্ট, ২০২১ | ২১ শ্রাবণ, ১৪২৮

আফ্রিকার সোয়াজিল্যান্ডে অবরুদ্ধ বাংলাদেশি পরিবারগুলোর সাহায্য প্রার্থনা

বাংলাদেশি ব্যবসায়ীর দোকান পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে

ডেস্ক নিউজঃ

আফ্রিকার সোয়াজিল্যান্ডে চলমান রাজতন্ত্রবিরোধী আন্দোলন চরম সহিংসতায় রূপ নিয়েছে। ইতোমধ্যে কয়েক হাজার বিদেশি মালিকানাধীন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান লুট করে জ্বালিয়ে দিয়েছেন স্থানীয়রা।

এর মধ্যে রয়েছেন কয়েকশ বাংলাদেশি দোকানি। দোকান হারিয়ে বাংলাদেশিরা তাদের পরিবার নিয়ে বিপাকে রয়েছেন। চলমান পরিস্থিতিতে তাদের পরিবার অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছে।

সম্প্রতি দেশটিতে নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে ২১ আন্দোলনকারী প্রাণ হারিয়েছেন। সময়ে সময়ে বন্ধ থাকছে ইন্টারনেট। নতুন নতুন অঞ্চলে জারি করা হচ্ছে কারফিউ। এ অবরুদ্ধ পরিস্থিতিতে খাদ্য সংকটে পড়েছে অনেক বাংলাদেশি পরিবার। ইন্টারনেট বন্ধ ও ধীর গতির কারণে তারা যোগাযোগ করতে পারছে না কারও সঙ্গে।

এ অবস্থা থেকে মুক্তি পেতে বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও দক্ষিণ আফ্রিকার প্রিটোরিয়ার বাংলাদেশ দূতাবাস থেকে সাহায্য চাচ্ছে সোয়াজিল্যান্ড প্রবাসী পরিবারগুলো।

সোয়াজিল্যান্ড থেকে প্রবাসী তৌহিদুল ইসলাম মোবাইল ফোনে জানান, দেশটিতে দুই হাজারের মতো বাংলাদেশির নিজস্ব ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। সেখানে থাকা অধিকাংশ বাংলাদেশি তাদের পরিবার নিয়ে বাস করেন। দীর্ঘ ১৫ বছর ধরে সব ভালোই চলছিল। কিন্তু সম্প্রতি যে পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে, তাতে প্রবাসী বাংলাদেশিরা কোটি কোটি টাকা ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন।

সোয়াজিল্যান্ড বাংলাদেশি কমিউনিটির একজন দায়িত্বশীল সদস্য জানান, দেশটিতে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সরকার পুলিশ ও সেনাবাহিনী নামিয়েছে। এখন পরিস্থিতি কিছুটা থমথমে। ৫ জুলাই পর্যন্ত রাজপরিবারকে সময় বেঁধে দিয়েছে জনগণ। এর মধ্যে রাজপরিবারের সম্পদের হিসাব না দিলে এবং রাজা কর্তৃক নিয়োজিত প্রধানমন্ত্রী ও কয়েকজন দুর্নীতিগ্রস্ত মন্ত্রী ও এমপি পদত্যাগ না করলে তারা নতুন করে কঠোর আন্দোলন হবে। এতে পুনরায় আতঙ্ক তৈরি হচ্ছে। ভারতীয় দূতাবাস তাদের নাগরিককে নিরাপদে সরিয়ে নিয়েছে।

বাংলাদেশিদের উদ্ধার না করায় তারা অসহায়ত্ব ও ক্ষোভ জানাচ্ছেন। তারা বলছেন, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় দ্রুত তাদের উদ্ধারের ব্যবস্থা নিক। এদিকে, দক্ষিণ আফ্রিকার প্রিটোরিয়ার বাংলাদেশ দূতাবাস সূত্রে জানা গেছে, সোয়াজিল্যান্ডে প্রবাসীদের সঙ্গে যোগাযোগের মাধ্যমে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে।




Share via
Copy link
Powered by Social Snap